Bangladesh Community in France -BCF

Bangladesh Community in France -BCF This is an official page for the french government authorized association "BANGLADESH COMMUNITY IN FRANCE (BCF)" . Ceci est une page officielle de l’association « BANGLADESH COMMUNITY IN FRANCE (BCF) (BCF) » en vertu de la loi de 1901.

Fonctionnement normal

09/10/2021
রাতের প্যারিস

দিন কিংবা রাত, সর্বদা জমজমাট প্যারিস নগরী। ভিডিও তে রাতের প্যারিস।

আলোকিত ফ্রান্স প্রবাসী : আরিফুজ্জামান (ইমন)মোমবাতি যেমন নিজে জ্বলে তার চার পাশের অন্ধকার কে আলোকিত করে তোলে ঠিক তেমনি এক...
08/10/2021

আলোকিত ফ্রান্স প্রবাসী : আরিফুজ্জামান (ইমন)

মোমবাতি যেমন নিজে জ্বলে তার চার পাশের অন্ধকার কে আলোকিত করে তোলে ঠিক তেমনি এক একটা প্রবাসী বাংলার ঘরে ঘরে এক একটা মোমবাতির মতো আলোকিত করে যাচ্ছেন।
আজকে আপনাদের সামনে একজন আলোকিত ফ্রান্স প্রবাসীর কথা তুলে ধরছি, নাম আরিফুজ্জামান (ইমন), পিতার নাম সিরাজ উদ্দিন, গ্রাম: শৈলকূপা, জেলাঃ জিনাইদেহ, বাংলাদেশ।
তিনি অতি অল্প সময়ের মধ্যে শ্রম,সততা,মেধা ও নিষ্ঠার সাথে প্যারিসে গড়ে তুলেছেন,ইউরো বাংলা মাল্টিসার্ভিস ও ইউরোবাংলা ট্রাভেলস সহ তিনটি প্রতিষ্ঠান।একজন তরুণ ব্যবসায়ী হিসেবে নিজেকে ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠিত করতে স্বক্ষম হয়েছেন।

দেশপ্রেম ও দেশের মানুষের প্রতি ভালোবাসা, ইসলামের প্রতি টান, নিজ এলাকার পিঁছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করার দৃঢ় প্রত্যয়ে নিজ গ্রাম শৈলকুপার তামিন নগরে গড়ে তুলেছেন « সিরাজ উদ্দিন ইসলামিক একাডেমী « নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সেখানে বর্তমানে শত শত শিশু -কিশোর পড়া-শুনা করছেন।নিজের কষ্টার্জিত অর্থ শুধু মাত্র নিজ ভোগ বিলাসে ব্যবহার না করে তিনি দেশে একটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। তিনি একটা অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

আমার জানা মতে আররিফুজ্জামান ইমনের চেয়ে আরো বহুগুন্ বেশী ধনী লোক প্যারিসে বা প্রবাসে আছেন কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে কত জনের এমন সুন্দর মন আছে বা কতজন এই ধরণের মহৎ উদ্যোগ নিয়েছেন বলেন ? উত্তর এদের সংখ্যা তেমন বেশি একটা নয়.
এখানে উল্লেখ্য যে , বাংলাদেশের সিলেট অঞ্চলে ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিশেষ করে লন্ডনীরা এই ধরণের অনেক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন তাদের কে ধন্যবাদ।

ইমন ভাইদের কাজ দেখে আশা করি আপনি ও আপনার এলাকায় কিছু করতে অনুপ্রাণিত হবেন। ইমন ভাইয়েরা হোক আমাদের ভালো কাজের অনুপ্রেরণা।

সামর্থ্যবান প্রবাসীরা দেশ গঠনে আরো বেশী পরিমাণ এগিয়ে আসলে, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

নোটঃ আপনার চেনা -জানা এমন আলোকিত প্রবাসী থাকলে তার গল্প আমাদের কে জানান বা আপনি নিজে শেয়ার করুন।

মেলা সংক্রান্তি ব্রেকিং নিউজঃ এসোসিয়েশন সেকানো বাঙ্গালী (এ এস বি ) এবং বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন ফ্রান্স (বি সি এফ) এর যৌথ উদ...
07/10/2021

মেলা সংক্রান্তি ব্রেকিং নিউজঃ
এসোসিয়েশন সেকানো বাঙ্গালী (এ এস বি ) এবং বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন ফ্রান্স (বি সি এফ) এর যৌথ উদ্যোগে
ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে দুই দিন ব্যাপী বাংলাদেশ ডে (মেলা) হবে।
স্থানঃ Salle de la Légion d'honneur
Adresse :6 place de la Légion d’honneur
93200 Saint Dénis
তারিখ : ২৮ ও ২৯ ডিসেম্বর ২০২১

*উক্ত মেলায় বাংলাদেশী পোশাক প্রদর্শনী (স্টল ) বাংলাদেশী ফুড -পিঠাপুলি এবং বাংলাদেশী কালচারাল প্রোগ্রাম থাকবে ।
যারা স্টল দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন আপনাদের জন্য অফিসিয়ালি রেজিস্ট্রেশন সিস্টেম খুব শীঘ্রই ওপেন করা হবে।প্রোগ্রাম ডিটেলস ফ্রেঞ্চ ভার্সন সহ বিস্তারিত আসছে।

মেলা আয়োজক কমিটির পক্ষে
সরুফ সদিওল (এএস বি )
এম ডি নূর (বি সি এফ )

ফ্রান্সে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশিরা, এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আজকের পর্ব : SA WORLD (মোটর বাইক সরঞ্জামের দোকান)ফ্রান্সে বাংল...
06/10/2021

ফ্রান্সে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশিরা, এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।
আজকের পর্ব : SA WORLD (মোটর বাইক সরঞ্জামের দোকান)

ফ্রান্সে বাংলাদেশি বাইকারদের জন্য সু খবর, এ আপনি বাইক সংশ্লিষ্ঠ সব ধরণের প্রোডাক্ট সুলভ মূল্যে এখানে পাবেন। SA WORLD এ একবার গিয়ে দেখে আসতে পারেন।

উল্লেখ্য যে , খাবার ডেলিভারী (উবার) ফ্রান্সে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে এক নবদিগন্ত উম্মোচন করেছে। অনেকে উবার করে ভালো আয় রোজগার করতেছেন।ধারণা করা হয় প্যারিসে প্রায় ৫০০০ এর মতো বাংলাদেশি Livraison এর কাজ করেন। এদের প্রধান বাহন হচ্ছে মোটর বাইক। বাংলাদেশি বাইকার দের নিত্যদরকারী চাহিদা মেটানোর জন্য প্যারিস ১০ এ গড়ে উঠেছে বাংলাদেশি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান SA WORLD.

ঠিকানা : 37 Bd de Magenta, 75010 Paris

ইউরোপের মূলধারার রাজনীতিতে সাফল্য অর্জন করায় জনাব শাহ আলম কাজল ভাইকে অভিনন্দন, parabénsআমরা ইতিমধ্যে জানতে পেরেছি যে, পর...
03/10/2021

ইউরোপের মূলধারার রাজনীতিতে সাফল্য অর্জন করায়
জনাব শাহ আলম কাজল ভাইকে অভিনন্দন, parabéns

আমরা ইতিমধ্যে জানতে পেরেছি যে, পর্তুগালের দ্বিতীয় বৃহত্তর শহর বন্দর ও বাণিজ্যিক নগরী পোর্তোর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর হিসেবে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন শাহ আলম কাজল।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর পোর্তোর মিউনিসিপালিটি নির্বাচনে পোর্তো শহরের জুন্টা ফ্রেগজিয়া বনফিমের অ্যাসেম্বলিতে ৪৪% শতাংশ ভোট পড়ে। ক্ষমতাসীন সোশ্যালিস্ট পার্টির হয়ে প্রবাসী বাংলাদেশি শাহ আলম কাজ ২১.২% শতাংশ ভোট পেয়ে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে কাউন্সিলর পদে বিজয়ী হন।

বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন ফ্রান্স ( বি সি এফ ) এর পক্ষ থেকে আপনাকে অনেক অনেক অভিনন্দন। আমরা বিশ্বাস করি, পূর্তগালের মূলধারার রাজনীতির সাথে আপনার সম্পৃক্ততা এবং বিজয় , ইউরোপে বসবাসরত বাংলাদেশিদের বিশেষ করে বাংলাদেশি বংশোভূত তরুণদের মূলধারার রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হতে প্রবলভাবে উৎসাহিত করবে।আপনার সু -স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

বি সি এফ এক্সিকিউটিভ কাউন্সিল
প্যারিস, ৩ অক্টোবর ২০২১

02/10/2021
ফ্রান্সে বাংলাদেশী মালিকানাধীন বুফে রেস্ট্রুরেন্ট “ইন্ডিয়ান তাজ মহল”

ফ্রান্সে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশিরা ,এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।
ধারাবাহিক পর্বে আজকে কাস্টমার রিভিউ , ফ্রান্সে বাংলাদেশী মালিকানাধীন বুফে রেস্ট্রুরেন্ট “ইন্ডিয়ান তাজ মহল”
ঠিকানাঃ 3 Av. Eugène Pelletan, 94400 Vitry-sur-Seine

বিশেষ নোটঃ
—————
*ভিডিও টি গত সোমবার সন্ধ্যায় ধারণ করা।

*নাম ইন্ডিয়ান তাজমহল, মালিক বাংলাদেশী। অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে, রেস্ট্রুরেন্টের নাম বাংলাদেশী দেয়া হয়নি কেন? তার প্রধান কারণ হচ্ছে আমাদের দেশী খাবার গুলি বিদেশে ইন্ডিয়ান ফুড হিসেবে পরিচিত এবং এটি এই নামে সু -প্রতিষ্ঠিত ব্র্যান্ড।বাংলাদেশি রেস্ট্রুরেন্ট নামটা ব্র্যান্ডিং করার জন্য আমাদের কাজ করা দরকার এটি সময় স্বাপেক্ষ ব্যাপার।

*আমাদের জানামতে কাশ্মীর প্যালেস নামে বাংলাদেশী মালিকানাধীন আরো দুইটি বুফে রেস্ট্রুরেন্ট ফ্রান্সে রয়েছে। আমাদের অজানা আরো থাকতে পারে।

25/09/2021
প্যারিসের আইকনিক L’Arc de Triomphe কে নবরুপে সাজানো হয়েছে।

ফ্রান্সে শিল্পকর্ম ও শিল্পীদের কদর অনেক বেশী।দেশটি শিল্পীদের যথেষ্ঠ সম্মান দিতে জানে।
প্রখ্যাত আর্টিস্ট Christo et Jeanne-Claude দম্পতির অবদানকে স্মরণ এবং তাদের ইচ্ছা পূরণের জন্য ১৪ মিলিয়ন ইউরো ব্যয়ে L’Arc de Triomphe কে নবরুপে সাজিয়েছে। শিল্পী Christo L’Arc de Triomphe এমন সাজে দেখতে ইচ্ছা পোষণ করে ছিলেন। আজ থেকে ৬০ পূর্বে তিনি এই রকম ছবি এঁকে ছিলেন সেটি এখন বাস্তবে রূপ দেয়া হল। উল্লেখ্য যে প্রথিতযশা শিল্পী Christo গত বছর ২০২০ সালের মে মাসে মারা যান।

19/09/2021

রিপাবলিক চত্বর থেকে
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বৈশাখী উৎসব

18/09/2021
বি সি এফ অফিস থেকে আজকে ৬জন কে কাজের সন্ধান দেয়া হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ :

একটা কাজ,একটা পরিবার কে স্বাবলম্বি হতে দারুণভাবে হেল্প করে। « ফ্রান্সে কাজ খুঁজে পেতে আপনার পাশে বি সি এফ «
এই শিরোনামে বি সি এফ সার্সেল বি ডি মার্কেট অফিসে আজকে বিশেষ সার্ভিস ছিল। চাকুরীর খুঁজে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ফ্রান্স প্রবাসী আজকে বি সি এফ অফিসে এসেছেন তাদের মধ্য থেকে তাৎক্ষণিকভাবে ৬ জনকে জব অফার দিয়ে নিয়োগ কর্তার নিকট পাঠানো হয়েছে। আশা করছি তাদের জব টা কনফার্ম হয়ে যাবে।

18/09/2021
বি সি এফ অফিস থেকে আজকে ৬জন কে কাজের সন্ধান দেয়া হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ :

বি সি এফ অফিস থেকে আজকে ৬জন কে কাজের সন্ধান দেয়া হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ :

একটা কাজ,একটা পরিবার কে স্বাবলম্বি হতে দারুণভাবে হেল্প করে। « ফ্রান্সে কাজ খুঁজে পেতে আপনার পাশে বি সি এফ «
এই শিরোনামে বি সি এফ সার্সেল বি ডি মার্কেট অফিসে আজকে বিশেষ সার্ভিস ছিল। চাকুরীর খুঁজে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ফ্রান্স প্রবাসী আজকে বি সি এফ অফিসে এসেছেন তাদের মধ্য থেকে তাৎক্ষণিক ৬ জনকে জব অফার দিয়ে নিয়োগ কর্তার নিকট পাঠানো হয়েছে। আশা করছি তাদের জব টা কনফার্ম হয়ে যাবে।

আমাদের নিকট বেশ কিছু জব অফার ছিল কিন্তু নিয়োগকর্তাদের চাহিদা হিসেবে উপযুক্ত লোক না পাওয়াতে দেয়া যায়নি। সপ্তাহ ১০ দিন পরে আমরা আবার এই সার্ভিস টি দিবো। ঐ দিন যারা আসবেন সাথে করে অবশ্যই সিভি নিয়ে আসবেন।

বিশেষ ধন্যবাদ ইমরান ,স্টেফি, আজিজ পিন্টু এবং ফারুক ভাইকে।

ফ্রান্সে কমিউনিটির সেবার সেকাল -একাল এবং ভবিষ্যৎ: দিন দিন বড় হচ্ছে আমাদের কমিউনিটি, কমিউনিটি ভিত্তিক সেবা গুলি বাড়ছে এতে...
15/09/2021

ফ্রান্সে কমিউনিটির সেবার সেকাল -একাল এবং ভবিষ্যৎ:

দিন দিন বড় হচ্ছে আমাদের কমিউনিটি, কমিউনিটি ভিত্তিক সেবা গুলি বাড়ছে এতে করে অনেকে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে উপকৃত হচ্ছেন। ফেইসবুক পোষ্টের সূত্র ধরে মানুষের চাকুরী হচ্ছে, বাসা ভাড়া হচ্ছে, অনলাইন বুটিক, ক্যাটারিং ব্যবসা, ট্যুর অপারেটিং সহ আরো অনেক কিছু চলছে।কোন প্লাটফর্ম থেকে হচ্ছে সেটি ফ্যাক্ট না, কাজটা হচ্ছে এটি মূলত ফ্যাক্ট। যে সকল মানুষ নিঃস্বার্থভাবে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তাদের কে সাধুবাদ জানাই।

একটা বিষয় লক্ষণীয় যে , নিজের খেয়ে বনের মহিষ তাড়ানো মানুষের সংখ্যা দিন দিন আরো কমে আসবে। নিজের অর্থ, সময় ,মেধা ব্যয় করে নিঃস্বার্থ ভাবে কাজ করা মানুষের সংখ্যা এখনো তেমন বেশী না। সঠিক পরিসংখ্যান না থাকলেও ধারণা করা হয় , ফ্রান্সে বর্তমানে প্রায় ২৫০ এর মতো নিবন্ধিত বাংলাদেশী সংগঠন আছে কিন্তু বাস্তবে কয়টা সংগঠনের কার্যক্রম আছে? কয়টা সংগঠন মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে? আমার জানামতে হাতে গোণা অল্প কয়েকটি। মজার বিষয় হচ্ছে যারা কাজ করে না, তাদের কোনো আলোচনা -সমালোচনা নেই, তাদের নিয়ে কেউ কথা ও বলে না।
অন্যদিকে যারা কাজ করেন, যাদের দ্বারা দুই চার পাঁচ জন উপকৃত হচ্ছেন ,যারা নিজের পকেটের পয়সা চাঁদা দিয়ে অফিস চালান, যারা সারা সপ্তাহ কাজ করার পর ছুটির দিন টি নিজের জন্য ব্যয় না করে ক্লান্ত দেহ মন নিয়ে দেশী মানুষদের কে সার্ভিস সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। যারা নিজের ফেইসবুক আইডি টাকে একটা সেবা কেন্দ্র বানিয়ে ফেলছেন।অনলাইনে , ফোনে, মেসেন্জারে ঘন্টার পর ঘন্টা সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছেন। আমরা তাদেরকে বা তাদের কাজ কে যথেষ্ট মূল্যায়ন করছি কি ? কখনো কি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ধন্যবাদ টা দিচ্ছি কি ?

তাদের কাজের স্বীকৃতি দিয়ে তাদেরকে আমরা কি অনুপ্রাণিত করছি ? নাকি জেলাসী হয়ে টাইন্যা ধরার চেষ্টা করছি ?

আর কিছু না হোক অন্তত যে কোনো ভালো কাজে আমাদের উচিত উৎসাহ দেয়া। ভালো কাজের প্রশংসা করা উচিত ,সে যদি আমাদের শত্রু হয় , ভালো কাজ করলে তা ভালো বলা উচিত।

ফ্রান্সের বাংলাদেশ কমিউনিটিতে অনলাইন ভিত্তিক সেবা প্রদানের দিক থেকে বি সি এফ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। বি সি এফ তার কাজের মাধ্যমে কমিউনিটিতে একটা পজেটিভ চেঞ্জ নিয়ে আসতে পেরেছে। এখন কমিউনিটিতে বিসিএফ এর মতো আরো কয়েকটা সেবামূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে কমিউনিটিতে ভালো কাজ করতেছে।এটাই মূলত বি সি এফ এর সাফল্য।

২০১২ সাল থেকে বি সি এফ বহুমুখী সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। প্যারিসের রাস্তায় দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ, শীতের সময় শীতবস্র বিতরণ ,স্বেচ্ছায় রক্তদান, কুইজ প্রতিযোগিতা, ক্রিকেট টূর্নামেন্ট আয়োজন, ফরাসি নাগরিকত্ব লাভের আবেদন প্রক্রিয়ার উপর দুইবার সেমিনার আয়োজন, ফরমাসিও সিভিক আয়োজন, টি সি এফ এর প্রস্তূতি কোর্স , বাংলা ডে, ওয়ার্ল্ড ক্লিনআপ ডে, ঈদ ফেস্টিভ্যাল প্যারিস ২বার আয়োজন, অফিস নিয়ে হেল্প সেন্টার খুলে এর মাধ্যমে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে পরামর্শ প্রদান। করোনা মহামারীর সময় আর্থিক সহযোগিতা প্ৰদান, মানবিক সহযোগিতা, ফ্রান্স প্রবাসী মরহুম হুমায়ন কবির (ক্যান্সার আক্রান্ত ), নোয়াখালীতে নির্যাতিতা পারুল বেগম এবং আমরা সবাই ফাউন্ডেশন (পথ শিশু পরিবার ) কে আর্থিক সহযোগীতা প্রদান। ফ্রান্সে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত কৃতি শিক্ষার্থী এবং বাংলাদেশ থেকে ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টস হিসেবে পড়তে আসা কৃতি শিক্ষার্থীদেরকে (বাক থেকে পিএইচডি ) পর্যন্ত চার বার কৃতিশিক্ষার্থী সংবর্ধনা প্রদান সহ অনেক কর্মযজ্ঞ বি সি এফ করে আসছে। বি সি এফ তার কর্মের মাধ্যমে হাজারো ফ্রান্স প্রবাসীর হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।

আমরা বি সি এফ থেকে বাংলাদেশীদের প্রাথমিক সহযোগীতা প্রদান থেকে শুরু করে , কাজ পেতে হেল্প করা , কাগজ পেতে এবং ফরাসি নাগরিকত্ব পাওয়ার ক্ষেত্রে সহযোগীতা প্রদান করে আসছি। আমরা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষকে হেল্প করেছি।গত বছর করোনার মহামারীর কারণে আমরা অনেক কাজ সীমিত করে আসছি। এখন পরিস্থিতি অনেকটা নরমাল আমরা বেশ কিছু নতুন প্রজেক্ট হাতে নিয়েছি। তবে কৌশলগত কারণে আমাদের কাজ করার ধরণে বড় ধরণের একটা পরিবর্তন আনা হয়েছে।

সময়ের সাথে সাথে কাজের ধরণ ও চেঞ্জ হয়। আজ থেকে ১১ বছর আগে আমি প্যারিসে এসে দেখেছিলাম, ট্রান্সলেটর শাজাহান, মতি , হাদি ভাই , সোহেল ইবনে হোসেন ,রেজা ভাই, জয়ন্ত দা এরা কাজ করতেছেন। হাদি ভাইয়ের অফিসের সামনে বড় লাইন লেগে থাকতো। রেজা ভাই ওখানে ও লাইন থাকতো।জয়ন্ত তখন রেজা ভাইয়ের টেলিফোন দোকানে কাজ করতো। সোহেল ইবনে হোসেন তখন খুব ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন। ট্রান্সলেটর হিসেবে শাহজাহান সাহেবের চাহিদা ছিল সবার উপরে। তারা পয়সার বিনিময়ে যেমন কাজ করেছেন আবার বিনামূল্যে মানবিক কাজ ও করেছেন। মানুষ কে হেল্প করার ক্ষেত্রে টি এম রেজা ভাইয়ের নাম টা এখনো অনেক উজ্জ্বল।

এখন যারা কাজ করতেছে আগামী ১০ বছর পরে তারাও থাকবে না। তখন নতুনরা আসবে -তখন অন্য কিছু আসবে। এক সময়ের জনপ্রিয় ইয়াহু মেসেঞ্জার, স্কাইপ এখন আর তেমন একটা ব্যবহার হয়না। এটায় রিয়েলিটি।

যে সকল মানুষ জীবন ও জীবিকার জন্য বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্সে এসেছেন আমাদের প্রথম ও দ্বিতীয় প্রজন্ম স্বদেশীদের অনেক সহযোগীতা করেছেন। তখন স্মার্ট ফোন, গুগল , ফেইসবুক কিছুই ছিল না।এখনকার মতো এত ফ্রেঞ্চ জানা লোকজন ও ছিল না। যে কোনো দাপ্তরিক কাজের জন্য বিশেষ করে দমিছিল বা প্রিফেকচারে সাথে করে নিয়ে গিয়ে দেখিয়ে দেয়া লাগতো। তখন কার্ড দূ স্যালারি (ইমিগ্র্যান্ট ) পেপার বলতে কিছুই ছিল না। একটা মানুষ মামলা না পেলে ১০বছর কাগজের জন্য অপেক্ষা করা লাগতো। আজকের এই কমিউনিটির পিছনে আমাদের অগ্রজ -প্রথম ও দ্বিতীয় প্রজন্মের বিরাট অবদান রয়েছে। তাদের অবদান কে স্যালুট জানাই।

ফ্রান্সে জন্ম নেয়া আমাদের আগামী প্রজন্মের ছেলে মেয়েদের মধ্যে বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশী মানুষদের নিয়ে কাজ করার আগ্রহ অনেক কম। এর পিছনে কারণ অনেক। তারা আন্তরিকতার সাথে এগিয়ে না আসলে কমিউনিটি সার্ভিস গুলি আর টিকে থাকবে না। তবে ফ্রান্সে যুগ যুগ ধরে ফরাসিদের সংস্থা -সোশ্যাল কাজ ছিল আছে এবং থাকবে।

শ্রীলংকান বা চাইনিজদের মতো স্বনির্ভর কমিউনিটি গড়ে তুলতে হলে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে এর কোনো বিকল্প দেখছি না।এই বিষয়ে আপনাদের সুচিন্তিত ও গঠনমূলক মতামত প্রত্যাশা করছি।

ফ্রান্সে কমিউনিটির সেবার সেকাল -একাল এবং ভবিষ্যৎ:

দিন দিন বড় হচ্ছে আমাদের কমিউনিটি, কমিউনিটি ভিত্তিক সেবা গুলি বাড়ছে এতে করে অনেকে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে উপকৃত হচ্ছেন। ফেইসবুক পোষ্টের সূত্র ধরে মানুষের চাকুরী হচ্ছে, বাসা ভাড়া হচ্ছে, অনলাইন বুটিক, ক্যাটারিং ব্যবসা, ট্যুর অপারেটিং সহ আরো অনেক কিছু চলছে।কোন প্লাটফর্ম থেকে হচ্ছে সেটি ফ্যাক্ট না, কাজটা হচ্ছে এটি মূলত ফ্যাক্ট। যে সকল মানুষ নিঃস্বার্থভাবে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তাদের কে সাধুবাদ জানাই।

একটা বিষয় লক্ষণীয় যে , নিজের খেয়ে বনের মহিষ তাড়ানো মানুষের সংখ্যা দিন দিন আরো কমে আসবে। নিজের অর্থ, সময় ,মেধা ব্যয় করে নিঃস্বার্থ ভাবে কাজ করা মানুষের সংখ্যা এখনো তেমন বেশী না। সঠিক পরিসংখ্যান না থাকলেও ধারণা করা হয় , ফ্রান্সে বর্তমানে প্রায় ২৫০ এর মতো নিবন্ধিত বাংলাদেশী সংগঠন আছে কিন্তু বাস্তবে কয়টা সংগঠনের কার্যক্রম আছে? কয়টা সংগঠন মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে? আমার জানামতে হাতে গোণা অল্প কয়েকটি। মজার বিষয় হচ্ছে যারা কাজ করে না, তাদের কোনো আলোচনা -সমালোচনা নেই, তাদের নিয়ে কেউ কথা ও বলে না।
অন্যদিকে যারা কাজ করেন, যাদের দ্বারা দুই চার পাঁচ জন উপকৃত হচ্ছেন ,যারা নিজের পকেটের পয়সা চাঁদা দিয়ে অফিস চালান, যারা সারা সপ্তাহ কাজ করার পর ছুটির দিন টি নিজের জন্য ব্যয় না করে ক্লান্ত দেহ মন নিয়ে দেশী মানুষদের কে সার্ভিস সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। যারা নিজের ফেইসবুক আইডি টাকে একটা সেবা কেন্দ্র বানিয়ে ফেলছেন।অনলাইনে , ফোনে, মেসেন্জারে ঘন্টার পর ঘন্টা সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছেন। আমরা তাদেরকে বা তাদের কাজ কে যথেষ্ট মূল্যায়ন করছি কি ? কখনো কি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ধন্যবাদ টা দিচ্ছি কি ?

তাদের কাজের স্বীকৃতি দিয়ে তাদেরকে আমরা কি অনুপ্রাণিত করছি ? নাকি জেলাসী হয়ে টাইন্যা ধরার চেষ্টা করছি ?

আর কিছু না হোক অন্তত যে কোনো ভালো কাজে আমাদের উচিত উৎসাহ দেয়া। ভালো কাজের প্রশংসা করা উচিত ,সে যদি আমাদের শত্রু হয় , ভালো কাজ করলে তা ভালো বলা উচিত।

ফ্রান্সের বাংলাদেশ কমিউনিটিতে অনলাইন ভিত্তিক সেবা প্রদানের দিক থেকে বি সি এফ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। বি সি এফ তার কাজের মাধ্যমে কমিউনিটিতে একটা পজেটিভ চেঞ্জ নিয়ে আসতে পেরেছে। এখন কমিউনিটিতে বিসিএফ এর মতো আরো কয়েকটা সেবামূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে কমিউনিটিতে ভালো কাজ করতেছে।এটাই মূলত বি সি এফ এর সাফল্য।

২০১২ সাল থেকে বি সি এফ বহুমুখী সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। প্যারিসের রাস্তায় দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ, শীতের সময় শীতবস্র বিতরণ ,স্বেচ্ছায় রক্তদান, কুইজ প্রতিযোগিতা, ক্রিকেট টূর্নামেন্ট আয়োজন, ফরাসি নাগরিকত্ব লাভের আবেদন প্রক্রিয়ার উপর দুইবার সেমিনার আয়োজন, ফরমাসিও সিভিক আয়োজন, টি সি এফ এর প্রস্তূতি কোর্স , বাংলা ডে, ওয়ার্ল্ড ক্লিনআপ ডে, ঈদ ফেস্টিভ্যাল প্যারিস ২বার আয়োজন, অফিস নিয়ে হেল্প সেন্টার খুলে এর মাধ্যমে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে পরামর্শ প্রদান। করোনা মহামারীর সময় আর্থিক সহযোগিতা প্ৰদান, মানবিক সহযোগিতা, ফ্রান্স প্রবাসী মরহুম হুমায়ন কবির (ক্যান্সার আক্রান্ত ), নোয়াখালীতে নির্যাতিতা পারুল বেগম এবং আমরা সবাই ফাউন্ডেশন (পথ শিশু পরিবার ) কে আর্থিক সহযোগীতা প্রদান। ফ্রান্সে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত কৃতি শিক্ষার্থী এবং বাংলাদেশ থেকে ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টস হিসেবে পড়তে আসা কৃতি শিক্ষার্থীদেরকে (বাক থেকে পিএইচডি ) পর্যন্ত চার বার কৃতিশিক্ষার্থী সংবর্ধনা প্রদান সহ অনেক কর্মযজ্ঞ বি সি এফ করে আসছে। বি সি এফ তার কর্মের মাধ্যমে হাজারো ফ্রান্স প্রবাসীর হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।

আমরা বি সি এফ থেকে বাংলাদেশীদের প্রাথমিক সহযোগীতা প্রদান থেকে শুরু করে , কাজ পেতে হেল্প করা , কাগজ পেতে এবং ফরাসি নাগরিকত্ব পাওয়ার ক্ষেত্রে সহযোগীতা প্রদান করে আসছি। আমরা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষকে হেল্প করেছি।গত বছর করোনার মহামারীর কারণে আমরা অনেক কাজ সীমিত করে আসছি। এখন পরিস্থিতি অনেকটা নরমাল আমরা বেশ কিছু নতুন প্রজেক্ট হাতে নিয়েছি। তবে কৌশলগত কারণে আমাদের কাজ করার ধরণে বড় ধরণের একটা পরিবর্তন আনা হয়েছে।

সময়ের সাথে সাথে কাজের ধরণ ও চেঞ্জ হয়। আজ থেকে ১১ বছর আগে আমি প্যারিসে এসে দেখেছিলাম, ট্রান্সলেটর শাজাহান, মতি , হাদি ভাই , সোহেল ইবনে হোসেন ,রেজা ভাই, জয়ন্ত দা এরা কাজ করতেছেন। হাদি ভাইয়ের অফিসের সামনে বড় লাইন লেগে থাকতো। রেজা ভাই ওখানে ও লাইন থাকতো।জয়ন্ত তখন রেজা ভাইয়ের টেলিফোন দোকানে কাজ করতো। সোহেল ইবনে হোসেন তখন খুব ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন। ট্রান্সলেটর হিসেবে শাহজাহান সাহেবের চাহিদা ছিল সবার উপরে। তারা পয়সার বিনিময়ে যেমন কাজ করেছেন আবার বিনামূল্যে মানবিক কাজ ও করেছেন। মানুষ কে হেল্প করার ক্ষেত্রে টি এম রেজা ভাইয়ের নাম টা এখনো অনেক উজ্জ্বল।

এখন যারা কাজ করতেছে আগামী ১০ বছর পরে তারাও থাকবে না। তখন নতুনরা আসবে -তখন অন্য কিছু আসবে। এক সময়ের জনপ্রিয় ইয়াহু মেসেঞ্জার, স্কাইপ এখন আর তেমন একটা ব্যবহার হয়না। এটায় রিয়েলিটি।

যে সকল মানুষ জীবন ও জীবিকার জন্য বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্সে এসেছেন আমাদের প্রথম ও দ্বিতীয় প্রজন্ম স্বদেশীদের অনেক সহযোগীতা করেছেন। তখন স্মার্ট ফোন, গুগল , ফেইসবুক কিছুই ছিল না।এখনকার মতো এত ফ্রেঞ্চ জানা লোকজন ও ছিল না। যে কোনো দাপ্তরিক কাজের জন্য বিশেষ করে দমিছিল বা প্রিফেকচারে সাথে করে নিয়ে গিয়ে দেখিয়ে দেয়া লাগতো। তখন কার্ড দূ স্যালারি (ইমিগ্র্যান্ট ) পেপার বলতে কিছুই ছিল না। একটা মানুষ মামলা না পেলে ১০বছর কাগজের জন্য অপেক্ষা করা লাগতো। আজকের এই কমিউনিটির পিছনে আমাদের অগ্রজ -প্রথম ও দ্বিতীয় প্রজন্মের বিরাট অবদান রয়েছে। তাদের অবদান কে স্যালুট জানাই।

ফ্রান্সে জন্ম নেয়া আমাদের আগামী প্রজন্মের ছেলে মেয়েদের মধ্যে বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশী মানুষদের নিয়ে কাজ করার আগ্রহ অনেক কম। এর পিছনে কারণ অনেক। তারা আন্তরিকতার সাথে এগিয়ে না আসলে কমিউনিটি সার্ভিস গুলি আর টিকে থাকবে না। তবে ফ্রান্সে যুগ যুগ ধরে ফরাসিদের সংস্থা -সোশ্যাল কাজ ছিল আছে এবং থাকবে।

শ্রীলংকান বা চাইনিজদের মতো স্বনির্ভর কমিউনিটি গড়ে তুলতে হলে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে এর কোনো বিকল্প দেখছি না।এই বিষয়ে আপনাদের সুচিন্তিত ও গঠনমূলক মতামত প্রত্যাশা করছি।

Adresse

16 Avenue Du 8 Mai 1945
Sarcelles
95200

Metro Ligne 7 (Porte de Ivry). Tram 3 ( Maryse Bastie). Bus 27,132 (Porte de Vitry)

Téléphone

+33758641300

Notifications

Soyez le premier à savoir et laissez-nous vous envoyer un courriel lorsque Bangladesh Community in France -BCF publie des nouvelles et des promotions. Votre adresse e-mail ne sera pas utilisée à d'autres fins, et vous pouvez vous désabonner à tout moment.

Contacter L'entreprise

Envoyer un message à Bangladesh Community in France -BCF:

Vidéos

Organisations à But Non Lucratifss á proximité


Autres Organisation à but non lucratif à Sarcelles

Voir Toutes